যাইতুনের তেল

৳ 300.00

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ “তোমরা (যাইতুনের) তেল খাও এবং তা শরীরে এবং চুলে ব্যবহার করো। কেননা এটা বারাকাহ ও প্রাচুর্যময় গাছের তেল।”
সহীহ, ইবনু মা-জাহ (১৩১৯)

রাসুল(সা:) যেহেতু ব্যবহার করতে বলেছেন এতে নানাবিধ উপকারিতা থাকাটাই স্বাভাবিক। যাইতুন তেলের কয়েকটি উপকারীতা জেনে নেওয়া যাক।

গুনাগুন ও ব্যবহারবিধি:
১। যাইতুন রক্তের কার্যক্ষমতা বাড়ায়, রক্তকে তরল রাখে ও হৃদরোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে। তাই নিয়মিত যাইতুন তেলে রান্না খাবার খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।
২। যাইতুন তেলে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ক্যানসার প্রতিরোধে সহায়তা করে ও ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।
৩। যাদের হাত পায়ের নখ ভেঙে যাওয়ার অভ্যাস আছে তারা যাইতুন তেল ম্যসাজ করে ভঙ্গুরতা রোধ করতে পারেন।
৪। রক্তে কোলস্টেরলের মাত্রাটা বেশি থাকলে যাইতুনের তেলের কোনো বিকল্প নেই। বিভিন্ন রান্নায় ও সালাদে এই তেল ব্যবহারে স্বাদ ও পুষ্টি দুটোই ঠিক রাখতে পারেন আবার কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেন।
৫। ত্বকে চুলকানির সমস্যা দূর করতে এই তেল ম্যাসাজ করতে পারেন। শিশুর ত্বকেও নিরাপদ তেল হিসেবে জলপাই তেল ব্যবহার করা যেতে পারে।
৬। যাইতুনের তেল মাথার ত্বকের খুশকি দূর করার জন্যও উপকারী।
৭। খাবারে নিয়মিত অলিভ অয়েল ব্যবহার করলে সিস্টোলিক এবং ননসিস্টোলিক রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনে।
৮। যাইতুনের তেল মোটা হওয়ার প্রবণতা দূর করে।
৯। বয়ষ্কদের হাড়ের ভঙ্গুরতা দূর করতেও যাইতুনের তেলের দারুণ গুণ রয়েছে।
১০। যাইতুনের তেল চোখ ওঠা, চোখের পাতায় ইনফেকশন সারাতে দারুণভাবে সাহায্য করে।
১১। ত্বকের ক্ষত দ্রুত সারাতে যাইতুনের তেল সহায়তা করে।

পরিমাণঃ ৩০০ গ্রাম
উৎপাদকঃ সরোবর

1 in stock

SKU: 54455834 Category:

Description

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ “তোমরা (যাইতুনের) তেল খাও এবং তা শরীরে এবং চুলে ব্যবহার করো। কেননা এটা বারাকাহ ও প্রাচুর্যময় গাছের তেল।”
সহীহ, ইবনু মা-জাহ (১৩১৯)

রাসুল(সা:) যেহেতু ব্যবহার করতে বলেছেন এতে নানাবিধ উপকারিতা থাকাটাই স্বাভাবিক। যাইতুন তেলের কয়েকটি উপকারীতা জেনে নেওয়া যাক।

গুনাগুন ও ব্যবহারবিধি:
১। যাইতুন রক্তের কার্যক্ষমতা বাড়ায়, রক্তকে তরল রাখে ও হৃদরোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে। তাই নিয়মিত যাইতুন তেলে রান্না খাবার খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।
২। যাইতুন তেলে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ক্যানসার প্রতিরোধে সহায়তা করে ও ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।
৩। যাদের হাত পায়ের নখ ভেঙে যাওয়ার অভ্যাস আছে তারা যাইতুন তেল ম্যসাজ করে ভঙ্গুরতা রোধ করতে পারেন।
৪। রক্তে কোলস্টেরলের মাত্রাটা বেশি থাকলে যাইতুনের তেলের কোনো বিকল্প নেই। বিভিন্ন রান্নায় ও সালাদে এই তেল ব্যবহারে স্বাদ ও পুষ্টি দুটোই ঠিক রাখতে পারেন আবার কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেন।
৫। ত্বকে চুলকানির সমস্যা দূর করতে এই তেল ম্যাসাজ করতে পারেন। শিশুর ত্বকেও নিরাপদ তেল হিসেবে জলপাই তেল ব্যবহার করা যেতে পারে।
৬। যাইতুনের তেল মাথার ত্বকের খুশকি দূর করার জন্যও উপকারী।
৭। খাবারে নিয়মিত অলিভ অয়েল ব্যবহার করলে সিস্টোলিক এবং ননসিস্টোলিক রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনে।
৮। যাইতুনের তেল মোটা হওয়ার প্রবণতা দূর করে।
৯। বয়ষ্কদের হাড়ের ভঙ্গুরতা দূর করতেও যাইতুনের তেলের দারুণ গুণ রয়েছে।
১০। যাইতুনের তেল চোখ ওঠা, চোখের পাতায় ইনফেকশন সারাতে দারুণভাবে সাহায্য করে।
১১। ত্বকের ক্ষত দ্রুত সারাতে যাইতুনের তেল সহায়তা করে।

পরিমাণঃ ৩০০ গ্রাম
উৎপাদকঃ সরোবর

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “যাইতুনের তেল”

Your email address will not be published. Required fields are marked *